আবিরের স্বপ্ন যেন মুছে না যায়

যাদের  ঘরে  একজন  প্রতিবন্ধী  আছে ,  তাদের  কি  যে  কষ্ট  তা  স্বচক্ষে  না দেখলে  বোঝা যায়  না । আর  ঐ  পরিবারটি  যদি  থাকে  হতদরিদ্র  তাহলে  কষ্টটা আরো  বহুগুনে  বেড়ে  যায় ।

মেহেরপুর জেলার গাংনী উপজেলা গাঁড়াডোব  গ্রামের বাশার মিয়ার একটি ছেলে  সন্তান জন্ম প্রতিবন্ধী। ছেলেটির নাম আবির হাসান। আবির জন্ম প্রতিবন্ধি হলেও তার মা,বাবা তাকে কখনো  অবহেলা করে না। পরম মমতাই যত্ন করে জান তাকে। আবিরের বাবা হতদরিদ্র দিনমজুর।

আবির প্রতিবন্ধি হয়েও সরকারী কোন আনুদান পায় না। আবিরের মা,  বাবা তাকে সুস্থ করে তোলার জন্য অনেক টাকা  ব্যয়  করেছেন। বড় বড় ডাক্তার, কবিরাজ এর কাছে গেছেন, ছেলেকে সুস্থ করার জন্য। আবিরের মা,বাবা সপ্ন দেখে যে আর পাঁচটা  ছেলের মতো সে সাভাবিক ভাবে চলাফেরা করুক।কিন্তু অাবির এখনও সুস্থ হয়ে উঠতে পারেনি । সে স্বপ্ন দেখে একদিন হয়তো সে আর দশজনের মতো স্বাভাবিক জীবনযাপন করবে । পড়াশোনা করবে । চাকরি করবে ।

আবির বলে ,” মোর স্বপ্ন যেন না মুছে যায় । ” এমন কথায় স্বাভাবিকভাবেই আবিরের পরিবারের অন্য সদস্যদের চোখে পানি চলে আসে । এরকম হৃদয়ে নিংড়ানো ব্যাথা নিয়ে গাংনী উপজেলার অনেক গ্রামেই জন্মগতভাবে প্রতিবন্ধীদের জন্ম হচ্ছে । এ এক অপার রহস্য ।

এবং বেশির ভাগ পরিবারই গরিব । অর্থনৈতিক স্বচ্ছলতা নেই । তারা কোথায় যাবে , কেন এমন হচ্ছে এর উত্তর খোঁজে পাচ্ছেন না ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।