আশ্রাফ ভাইয়ের হাওয়াই মিঠাই

গোলাপি, সাদা হাওয়াই মিঠার প্যাকেট। আনন্দ দীঘির পাড় বসে হাওয়াই  মিঠাই বিক্রি করেন আশ্রাফ ভাই।বিশেষ করে বন্ধের দিনগুলোতে শুক্রবার ও শনিবার তিনি বেশি আসেন।আশ্রাফ ভাইর গ্রামের বাড়ি জামালপুর। বর্তমানে পরিবার নিয়ে তিনি সাভারের ধামরাই থাকেন।আগে গ্রামে কিছু কৃষি কাজ করতেন। এখন জমি ও কাজ কোনটিই নেই। তাই দুবছর ধরে ঢাকায় পাড়ি জমান।মামা দ্যাশে কোন কাজ নাই। টুকিটাকি কৃষি কাজ করতাম, তা করেতো আর পেট চলে না। তাই ঢাকায় চলে আসছি। অন্তত তিন বেলা ভাতের ব্যবস্থা হয়। আশ্রাফ মিয়া গত দুবছর যাবৎ সাভারের বিভিন্ন জায়গায় হাওয়াই মিঠাই বিক্রি করেন। সাত হাজার টাকা দিয়ে তিনি এই হাওয়াই মিঠাই মিশিনটি কিনেছেন।প্রতিদিন তিনি প্রায় দুই কেজি চিনি দিয়ে ৬০-৭০ টি হাওয়াই মিঠাইর প্যাকেট তৈরি করেন।সময় লাগে দুই থেকে আড়াই ঘন্টা। বিশ পচিঁশ প্যাকেট তৈরি করেন সেগুলো বিক্রি করেন, আবার বিশ প্যাকেট তৈরি করেন।এভাবে সারাদিন ভালো হলে প্রায় ৮০-১০০ টি প্যাকেট বিক্রি করতে পারেন। প্রতিটি প্যাকেটের মূল্য ১০ টকা বড় প্যাকেট হলে ২০ টাকা।প্রতিদিন ৭০০-৯০০ টাকার প্যাকেট বিক্রি করতে পারলে তার থাকে ৬০০-৭০০ টাকা।এই টাকা দিয়েই এক ছেলে আর স্ত্রীকে নিয়ে ধামরাই থাকেন।ছেলেটিকে স্কুলে ভর্তি করিয়েছন।স্ত্রী গৃহে কাজ করে।প্রতিদিন সকাল নয়টা হলে বের হন বেচাঁ-বিক্রি ভালো হলে রাতে বাসায় ফিরেন। এভাবেই চলছে আশ্রাফ মিয়ার জীবন সংসার।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।