জিন্দা পার্কে একদিন

অনীক যাবের, দেশগড়ি ফেলো, আইইউবি,

ঢাকাতে সময় কাটানোর মতো অনেক পার্ক আছে,তবে নোংরামি ও অশ্লীলতার কারনে পার্কগুলোতে যেতে এখন মানুষের ভয় করে ৷ ঢাকার যানযট,কোলাহল থেকে কিছুক্ষনের জন্য মুক্তি পেতে হলে ঘুড়ে আসা উচিত জিন্দা পার্ক এ ৷ অসাধারন স্থাপত্যশৈলীর ব্যাবহার ফুটিয়ে তোলা হয়েছে পার্কটিতে ৷ আছে স্কুল,কলেজ,মসজিদ ও লাইব্রেরী ৷ অসংখ্য গাছ-গাছালি,পাঁচটি লেক,ঝুলন্ত ব্রীজ,গাছের উপর ঘর গুলো প্রাকৃতিক ভাবেও জিন্দা পার্ক কে করেছে সমৃদ্ধ ৷ বর্তমানে বিদ্রোহী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় এর কাজ চলছে ৷ প্রায় ৫০০০ সদস্যের বিশাল পরিবারের “অগ্রপথিক পল্লী সমিতি” ১৯৮০ সালে যাত্রা শুরু করে। এ দীর্ঘ ৩৫ বছরের অক্লান্ত পরিশ্রম আর ত্যাগের ফসল এই পার্কটি। এ রকম মহাউদ্দেশ্য, এত লোকের সক্রিয় অংশগ্রহন এবং ত্যাগ স্বীকারের উদাহারণ খুব কমই দেখা যায়। অপস ক্যাবিনেট, অপস সংসদ এবং অপস কমিশন নামে পার্কটিতে ৩টি পরিচালনা পর্ষদ রয়েছে। বর্তমানে জিন্দা গ্রামটিকে একটি আদর্শ গ্রাম ও বলা হয় ৷

জিন্দা পার্কের অবস্থানঃ নারায়নগঞ্জ এর রূপগঞ্জ থানার পুর্বাচল উপশহর এ ৷

কীভাবে যাবেনঃ

ঢাকা থেকে উত্তরা হয়ে টঙ্গী ফ্লাইওভার পার হওয়ার পর মিরেরবাজার চৌরাস্তা থেকে ভুলতার দিকে হাতের ডানপাশে যে রাস্তা গিয়েছে (কাঞ্চন ব্রিজের দিকে) সেটি ধরে ২টি বড় ব্রিজ পার হয়ে কিছুদূর যেতে হবে। হাতের বামে ছোট একটি রাস্তা পড়বে। সেটি ধরে কিছুদূর গেলেই জিন্দা পার্কের দেখা মিলবে। এটি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের মধ্যে পড়েছে। আরেকটি সহজ উপায় হল পূর্বাচল ৩০০ ফিট রাস্তা। কুড়িল মোড় থেকে সিএনজি নিয়ে যাওয়া যাবে। সময় লাগবে ২০ মিনিট আর সিএনজি ভাড়া রিজার্ভ ৫০০ টাকা।তবে অটোতে গেলে জন প্রতি ৪০-৫০ টাকা করে নিবে। সহজ হবে কুড়িল বিশ্বরোড এর পুর্বাচল হাইওয়ে দিয়ে গেলে ৷ প্রবেশ টিকেটঃ১০০ টাকা ৷

 

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।