লিখেছেন: মোবারক মোল্লা

২০ টাকায় রাজধানীতে নৌভ্রমণ কীভাবে যাবেন ও ভাড়া কত ???

‘মাথার ওপরে সুনীল আকাশ; তাতে বিক্ষিপ্ত মেঘবালিকার ক্ষণে ক্ষণে লুকোচুরি। নিচে স্রে্াতসিনীর কুল কুল ধারা। নদীপাড়ে কাশবন। পাড়ঘেঁষে থাকা দ্বীপসদৃশ বসতবাড়ির বড় কোনো গাছ থেকে হঠাৎ শ্বেতশুভ্র একঝাঁক বকের উড়ে যাওয়া। স্বর্পিল আকৃতিতে বহমান নদের জলরাশিতে পশ্চিমে ডুবতে বসা সূর্যের রক্তিম অবয়ব’- এমন অপার নিসর্গ চকিতে দেখে মনে হবে, শিল্পীর তুলিতে আঁকা কোনো মূর্ত হয়ে ওঠা ছবি। প্রকৃতির এ অপার নৈসর্গের দেখা মেলে রাজধানীর কোলঘেঁষে নিরবধি বয়ে চলা বালু নদের বুকে নৌভ্রমণে। ভূমিগ্রাস, অপরিকল্পিত খনন আর শহরায়নের প্রভাবে সরু হয়ে এলেও এই বর্ষায়ও স্পষ্ট বোঝা যায় বালু নদের যৌবনের ঝলক। মাত্র ২০ টাকায় বালু নদের এ স্বর্গীয় প্রকৃতি উপভোগ করছে দৈনিক শত শত ভ্রমণপিয়াসু মানুষ। ‘ভ্রমণ প্রথমে তোমাকে নির্বাক করে দেবে, তারপর তোমাকে গল্প বলতে বাধ্য করবে’- বালু নদীতে নৌভ্রমণ […]

ছিলো শখ, হলেন তিনি সুখী

মন্টু মিয়া রাজধানীর মিরপুরের বাসিন্দা। এক বড় ভাইয়ের অনুপ্রেরণায় খরগোশ ও কবুতর পালন শুরু করেন। প্রায় পাঁচ বছর যাবত তিনি এগুলো পালন করছেন। প্রথমে শখের বশে পোষা শুরু করলেও বাণিজ্যিক চিন্তা মাথায় রয়েছে। ভবিষ্যতে বাণিজ্যিকভাবে কবুতর ও খরগোশ পালন করার ইচ্ছা রয়েছে।তিনি ৩ বছর যাবত খরগোশ পালন করছেন। একটি খরগোশ ১-২ মাস পর পর ৫-৬টি করে বাচ্চা দেয়। খরগোশ মূলত তৃণভোজী। এরা বাঁধাকপি, গাজর, শসা, ঘাস, শাক খায়। ফলে খাবারের খরচ খুবই কম। খরগোশের রোগ-ব্যাধি খুব কমই হয়ে থাকে।এছাড়া পাঁচ বছর আগে ছয়টি কবুতর দিয়ে শুরু করলেও বর্তমানে তার কবুতর ৩৫টি। কবুতরের রানীক্ষেত, ঠান্ডা, পালসহ অনেক ধরনের রোগ হয়ে থাকে। রোগাক্রান্ত হলে নিজেই চিকিৎসা করেন। কিছু কমন পদ্ধতি ব্যবহার বা মেডিসিন প্রদান করেন।তার বাসা থেকে ভেটেরিনারি চিকিৎসালয় দূরে হওয়ায় সেখানে […]

আলোর ঝর্ণাধারায় শারমিন

শারমিন আক্তার পরিবারের বড় সন্তান। পিতা: মনির হোসেন শেখ, গ্রাম ও পোস্ট: বালিয়া, উপজেলা সদর, চাঁদপুর। বাবা-মা ও পাঁচ ভাই-বোন নিয়ে তাদের অভাবের সংসার। তার বাবা মোঃ মনির হোসেন শেখ একজন দরিদ্র কৃষক। সাতজনের সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হয় তাকে। এমন অবস্থায় এইচএসসি পরীক্ষার পর অভাবের তাড়নায় বন্ধ হয়ে যায় শারমিনের লেখাপড়া। আর পরিবারের জন্য সে বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছিল। পরিবারে কোন আর্থিক সহায়তাও করতে পারছিল না শারমিন। দুর্বিষহ জীবন কাটাতে হয়েছে তার। এছাড়াও মাথার উপর ছিল বিয়ের খড়গ। কি করবে বুঝতে পারছিল না শারমিন। কিন্তু এই অন্ধকার থেকে তাকে আলোর পথে নিয়ে আসে এ্যাপ্রেনটিচশীপ প্রোগ্রাম। ২০১৬ সালের নভেম্বর মাসে শারমিন জানতে পারে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রোগ্রামের উদ্যোগে চাঁদপুর সদর উপজেলার বালিয়া প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে সেলাইবিষয়ক এ্যাপ্রেনটিসশীপ প্রোগ্রামশুরু হচ্ছে। হাতে-কলমে এ প্রশিক্ষণ […]

এক পা’য়ের জীবন

১০ সেপ্টেম্বর দুপুর বেলা। বৃষ্টি হচ্ছে । তবু  মিরা তার স্বজনদের জন্য কিছু কেনার পর রাপা প্লাজা থেকে ফিরছে।শপিংকরার জন্য মিরা সব সময় দুপুর বেলাকেই বেছে নেয়। কারন এই সময় মার্কেটে লোক জন কম থাকে। নিরিবিলি থাকায় দেখে শুনে দাম দর করে কেনা যায়। কেনা শেষে রিক্সা নিয়ে বাসায় ফিরছে মিরা। রিক্সা যাচ্ছে ধানমণ্ডির ৭ নাম্বার রোড দিয়ে। মিরার রিক্সার সামনের রিক্সায় দুইটা ছেলে মেয়ে অনেক ক্ষণ ধরে, একজন অন্যজনকে চুমু খেতে ব্যাস্ত। দেখেই মনে হয় দুই জনই স্কুল পড়ুয়া ছেলে মেয়ে। দুই জনই স্কুল ড্রেস পরে আছে। মিরা সেখান থেকে চোখ ফিরিয়ে নেয়, তাও পারে না, বার বার ঐ রিক্সার পিছনে চোখ আটকিয়ে যাচ্ছে। ওদের অবস্থা দেখে মিরার খুব শরম করে। অথচ শরম পাওয়ার কথা ছিল ওদের। ওদের বাবা […]

সোনালী আঁশের স্বপ্ন ভেঙে হতাশায় কৃষক

সিরাজগঞ্জের গ্রামাঞ্চল এখন পাট কাটা, জাগ দেওয়া এবং পাট শুকানো নিয়ে সোনালী স্বপ্ন দেখছে। জেলার হাট–বাজারে নতুন পাট উঠতে শুরু করেছে। তবে শুরুতেই দাম নিয়ে চাষীদের রয়েছে হতাশা। বিভিন্ন হাট–বাজারে দেখা যায়, প্রতি মণ পাট বিক্রি হচ্ছে ১৫’শ থেকে ১৭’শ টাকায়। এবার মোটামুটি অনুকূল আবহাওয়া থাকায় পাটের বাম্পার ফলন হয়েছে। কিন্তু শেষের দিকে বন্যার পানিতে কিছুটা ক্ষতি হলেও, আবার উপকারও হয়েছে। পাট জাগ দিতে হাতের কাছেই পানি আর পানি। চাষীরা জানান, জমিতে পানি থাকায় পাটগাছ কাটা শ্রমিকদের অনেক বেশি মজুরি দিতে হচ্ছে। বেলকুচি চরের কৃষক আব্দুল মান্নান বলেন, এই মৌসুমে আমি ৪ বিঘা জমিতে পাট লাগিয়েছি। ফলনও ভালো হয়েছে। আমি এ পর্যন্ত হাটে দুইবার পাট বিক্রি করেছি। পাটের দাম কম হওয়ায় বিপাকে পড়েছি। কামারখন্দ ইউনিয়নের দমদমা গ্রামের কৃষক মজিদ আলী […]

অন্ধকারের পরই আলো

মাস পড়লেই রফিক সাহেবের মাথা ব্যাথার শেষ নাই। আজো তাই। বাড়ী ভাড়া, কারেন্টের বিল, পানির বিল, গ্যাস বিল, পেপার বিল, বাচ্চাদের স্কুলের বেতন, টিচারের বেতন, বুয়ার বেতন, মাসের বাজার। এর মধ্যে আবার বাড়তি সমস্যা যোগ হয়, আজ অমুকের জন্মদিন, কাল তমুকের বিয়ে, এই সব দাওয়াত নিয়ে। প্রায়ই রফিক সাহেব কাজের চাপের উছিলা দিয়ে এই সব দাওয়াত গুলি ইগনোর করেন। ইগনোর না করে কোন উপায়ও নাই। প্রতি মাসেই রফিক সাহেব গুনাগাঁথা বেতনের হিসাব মিলাতে পারেন না। মাসের শেষে কিছু না কিছু টাকা ধার করতেই হয়। রফিক সাহেব একটা ব্যাংকে চাকরী করেন। তাঁর বেতন সাতাইশ হাজার টাকা। বেতনের অর্ধেকটাই চলে যায় বাড়ী ভাড়া আর বিল টিল গুনতে গুনতে। রফিক সাহেবের এক ছেলে এক মেয়ে। ছেলে মেয়ে দুই জনই স্কুলে পড়ে। ছেলেটা সিক্সে, […]

‘আব্বায় ভালা না মায়েরে খালি মারে’

সকাল সাড়ে ১১টা। ঢাকার সিএমএম আদালতের হাজিরা সেলে খেলছিল চার বছরের ছোট্ট একটি শিশু। আদালত প্রাঙ্গণে নানা বয়সী মানুষের ভিড় দেখে কৌতুহলি দৃষ্টিতে এদিক সেদিক তাকাচ্ছিল। তোমার নাম কি? কার সঙ্গে এসেছো বলতেই পেছন ফিরে তাকিয়ে বললো, ‘আমার নাম আসিফ। মায়ের সাথে আইছি। আমার আব্বায় ভালা না মায়েরে খালি মারে।’ জাগো নিউজের এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে আসিফের মা আসমা বেগম (২০) জানান, সাত বছর আগে তার বিয়ে হয় চাঁদপুরের গার্মেন্টস কর্মী আমিনের (২৬) সঙ্গে। বিয়ের কিছুদিন পর থেকে যৌতুকের জন্য মারধর করতো। সর্বশেষ ১১ সেপ্টেম্বর ৩০ হাজার টাকা দাবি করে স্বামী। টাকা দিতে না পারায় তাকে বেধড়ক মারধর করে আমিন। তিনি আরো বলেন, এর দুইদিন পর আমিনের কর্মস্থল মিরপুর সাড়ে এগারোতে তার গার্মেন্টসে গেলেও তাকে মারধর করে। শুধু মারধর করেই […]

ভাসমান কৃষিতে অপার সম্ভাবনা

নদীমাতৃক দেশ বাংলাদেশ। আমাদের রয়েছে ৪৫ লাখ হেক্টরের বেশি জলসীমা। গোপালগঞ্জ, ঝালকাঠি, বরিশাল, পিরোজপুর, সাতক্ষীরা, চাঁদপুর, কুমিল্লা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ জেলাসহ আরও অনেক জেলা বর্ষা মৌসুমে বিরাট অংশ জলাবদ্ধ থাকে। সেখানে বছরে প্রায় ৬ মাস পানিতে নিমজ্জিত থাকে। এ সময়ে সেখানে কোনো কৃষি কাজ থাকে না, ফসল হয় না, মানুষ বেকার জীবন-যাপন করে। ওইসব এলাকায় ওই সময়ে কচুরিপানা ও অন্যান্য জলজ আগাছায় ঢাকা থাকে। দক্ষিণাঞ্চলের কৃষকরা নিজেদের প্রয়োজনে নিজেরাই উদ্ভাবন করলেন ভাসমান কৃষি কার্যক্রম। এসব জেলার জলমগ্ন এলাকাগুলো কচুরিপানা ও অন্যান্য জলজ আগাছায় আচ্ছন্ন রয়েছে। বিশেষ করে বিভিন্ন বিল, হাওর, নালা, খাল ও মজা পুকুর। সেখানে এখন বিজ্ঞানসম্মত উপায়ে স্তূপ করে প্রয়োজনীয় মাপের ভেলার মতো বেড তৈরি করে ভাসমান পদ্ধতিতে বছরব্যাপী বিভিন্ন ধরনের শাকসবজি ও মসলা উৎপাদন করছেন […]

যে সিনেমাটি দৃশ্যায়িত হয়নি

নাহিদ সাহেব একজন চিত্র পরিচালক। তিনি আর্ট ফ্লিম মেকার। এই পর্যন্ত তিনি প্রায় ছয় সাতটা আর্ট ফিল্ম বানিয়েছেন। তাঁর মধ্যে তিনটি ছবির জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘরে তুলেন। এখন তিনি একটা নতুন ছবির কাজে হাত দেন। ছবির সাবজেক্ট সাঁওতালদের নিয়ে। দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ উপজেলার কাহারুল গ্রামে সাঁওতাল দের সাথে নাহিদ সাহেব তিন চারদিন সময় কাটিয়ে আসেন। সেই সাথে সেখানে শুটিং এর সেট ফেলার হিসাব নিকাশ করেন। জেলা প্রশাসকের অনুমতি, স্থানীয় থানা পুলিশের সহযোগিতা, এলাকার চেয়ারম্যান ও গ্রামবাসীর সহায়তা সব কিছু ঠিক করে এখন নাহিদ সাহেব ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। সব কিছু ঠিক থাকলে সামনে মাসের প্রথম থেকে টানা দুই মাস সেখানে তিনি শুটিং করবেন। এই ছবিটা বানাতে নাহিদ সাহেব সাঁওতালদের উপর অনেক পড়াশুনা করেন। নাহিদ সাহেবে খুবই অবাক হন, সাঁওতালদের তীর […]

রুমকির আলো-অন্ধকার

রাজীব সাহেব খুব সুখী একজন মানুষ। তিনি একটা সরকারি চাকুরী করেন। অফিস আর বাসা। এছাড়া তার অন্য কোন কাজ নাই। রাজীব সাহেবের স্ত্রী সাবিনা রাজীব। সাবিনা রাজীব ঘর সংসার নিয়েই বেশী ব্যস্ত থাকে। রাজীব সাহেবের এক ছেলে, এক মেয়ে। ছেলেটা ছোট। নাম রায়হান। ক্লাস ফোরে পড়ে। মেয়েটা বড়। ক্লাস টেনে পড়ে। মেয়ের নাম রুমকি। রুমকিকে নিয়েই রাজীব সাহেবের যত রকম চিন্তা ভাবনা। তিনি মেয়েকে ডাক্তার বানাবেন এটাই তাঁর ভাবনা। রাজীব সাহেবের ভাই বোনের ছেলে মেয়েরা খুব শিক্ষিত। এই নিয়ে তাদের গর্বের শেষ নাই। রাজীব সাহেবের গর্ব রুমকিকে নিয়ে। তিনি প্রতিদিন অফিস থেকে এসে তাকে নিয়ে পড়াতে বসেন। ঘরে রুমকি‘র কোন মাস্টার রাখেন না। তিনি নিজেই রুমকির মাস্টার। রুমকি খুবই ভালো ছাত্রী। ক্লাস ফাইভ থেকে তাঁর রোল নাম্বার দুই তিনের ঘরেই […]