বিভাগ: শিক্ষা

“পড়তে এসে অন্ধকার জগতে হারিয়ে যাচ্ছি”

“আকাশচুম্বি স্বপ্ন নিয়ে ভর্তি হয়েছি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে। ভর্তি হওয়ার পর থাকার জায়গা হলো গণরুমে। এক সঙ্গে গাদাগাদি করে থাকতাম প্রায় দেড়শ শিক্ষার্থী। রাত ১২টা থেকে চলতো সিনিয়র শিক্ষার্থীদের ব্যবহার শেখানোর নামে রেগিং। যা কোনভাবেই সহ্য করতে পারতাম না। যার কারণে রাতে ঠিক ভাবে ঘুম হতোনা। মনে সব সময় হতাশা আর অশান্তি কাজ করতো। জীবনে কখনো সিগারেট খাইনি, কিন্তু তখন একবিন্দু সুখের আশায় এক বন্ধুর পরামর্শে প্রথম সিগারেটে টান দিই। যা আমার জীবনে কাল হয়ে দাঁড়ায়।পড়তে এসেছিলাম,  এখন মাদক না নিলে সব কিছু এলোমেলো লাগে।” এভাবেই বলছিলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩য় বর্ষের এক মাদকাসক্ত এক শিক্ষার্থী। এমন শত শত শিক্ষার্থী ‘মাদকে’র ভয়াল থাবায় হারিয়ে ফেলছে তাদের স্বপ্ন। যার কারণে তাদের মাঝে ঘটছে নৈতিকতার অবক্ষয়। জড়িয়ে যাচ্ছে চুরি, ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপকর্মে। যার ফলে […]

দৃষ্টিহীন ঝর্ণা সফল হওয়ার দৃষ্টিভঙ্গীই বদলে দিচ্ছেন

মেয়েটির চোখে আলো নেই। এ পৃথিবীর অপার সৌন্দর্য তাই কখনোই তার দেখা হয়ে উঠেনি। বইয়ের পাতায় বর্ণগুলো দেখতে কেমন তাও সে জানেনা। কিন্তু পড়াশুনায় তার অদম্য ইচ্ছা। তাই অদম্য সেই ইচ্ছাশক্তির উপর ভর করে শুধুমাত্র কানে শুনেই একেকটা ক্লাস টপকে মেয়েটি এখন বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন গর্বিত শিক্ষার্থী। বলছি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের ঝর্ণা আক্তার রূপার কথা। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের জাহানারা ইমাম হলের আবাসিক শিক্ষার্থী। বাড়ি তার কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব থানায়। ইতিমধ্যেই শেষ হয়েছে তার বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের প্রথম বর্ষের পড়াশুনা। শুধুমাত্র দৃষ্টিহীনতার প্রতিবন্ধকতাকেই নয়। দারিদ্রের কঠিন চড়াই উৎরাইও ঝর্ণার অপ্রতিরোধ্য পথ চলাকে থামিয়ে দিতে পারেনি। দুই ভাই দুই বোনের সংসারে ঝর্ণা সবার ছোট। বাবা মারা গেছেন সে ছোট্ট বেলায়, যখন তার বয়স মাত্র এক বছর। বড় ভাইটি তার মানসিক প্রতিবন্ধী। আর্থিক […]

পিছিয়ে থাকার সময় শেষ

পিছিয়ে থাকার সময় অনেক আগেই শেষ হয়েছে। তাইতো আমাদের তরুণ-তরুণীরা আজ সাফল্যের পতাকা নিয়ে সামনে এগিয়ে যাচ্ছে। নাম উজ্জ্বল করছে আমাদের দেশের। আর এই এগিয়ে যাওয়ার মধ্যে রয়েছে অনেক শ্রমের গল্প। ঠিক তেমনি একজন আমাদের আরজানা ইতি। ছোটবেলায় সবার স্বপ্ন থাকে আমি ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার হব, কিন্তু আমাদের আরজানা ইতির স্বপ্ন ছিল মানুষের মতো মানুষ হবে সে। এমন মানুষ হতে চাই, যে মানুষকে দরকার হয়। বাড়ি গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে। এসএসসি করেছেন গাজীপুরের সালনা নাছির উদ্দিন মেমোরিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে। এইচএসসি গাজীপুর গভর্নমেন্ট মহিলা কলেজ থেকে। শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি থেকে বিবিএ করেছেন। গদবাঁধা পড়া লেখার পাশাপাশি নিজেকে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করার ইচ্ছা এবং কঠিনকে জয় করার তাগিদে আয়ত্ত করেন চীনা ভাষা। আমাদের দেশে সবচেয়ে বড় বাজেটের স্বপ্নের পদ্মা সেতু প্রকল্পে কাজ করছেন […]

শহরে কুড়িগ্রাম, কৃষক সন্তানের শিক্ষা সংগ্রাম

রাত ১০.৩০ টা। গন্তব্য রিকশায় টি,এস,সি থেকে শাহবাগ। চালক কম বয়সী। সম্ভবত আমার চেয়েও ছোট হবে। রিকশায় উঠে বলি -ভাই মগবাজার যাবেন? -না ভাই। এখন এতোদূর যাবো না। -আচ্ছা। শাহবাগেই নামায়ে দেন। -আচ্ছা ভাই, এখান থেকে দিনের বেলা মৌচাক কিভাবে যান? রাতের বেলা তো শাহবাগ হয়ে যান, রাস্তা খোলা থাকে। দিনের বেলা তো এই রাস্তা বন্ধ। -দিনের বেলা প্রেসক্লাব, সেগুনবাগিচা হয়ে যাওয়া লাগে। -ও আচ্ছা। হাতিরঝিলটা কোথায়? ওদিক দিয়েই যেতে হয় নাকি? -হ্যাঁ একই পথ দিয়ে যেতে হয়। -ও আচ্ছা। রিকশাচালকের কথা শুনে অবাক হই! এতো শুদ্ধ আর স্পষ্ট উচ্চারণ! অনেক শিক্ষিত লোকেও করতে পারে না। ইতোমধ্যেই চালক গান ধরে। মাটির গান। উত্তরের মেঠোপথ নদী যেন চোখের সামনে জীবন্ত হয়ে ধরা দেয়।  আরেকবার অবাক হলাম। এতো সুন্দর গানের গলা, অনেকদিন […]

জীবনযুদ্ধে অপরাজিত কিশোর শাহীন

চায়ের পাতায় ফোঁটায় ফোঁটায় গরম পানি দিয়ে লিকার তৈরি হচ্ছে। যেন কোনো শিল্পী পরম যত্নে ক্যানভাসে তুলির আঁচড়ে অপরূপ চিত্রকর্ম ফুটিয়ে তুলছেন। শিল্পী একটি নওল কিশোর। নাম শাহীন। শাহীনের বাবা মোঃ শফিকুল ইসলাম কুষ্টিয়ার মানুষ। ভাগ্যান্বেষণে এসেছিলেন খুলনায়। চায়ের দোকানটিই তার সম্বল। আয়ের একমাত্র মাধ্যম। অন্য ছেলেরা লুঙ্গি-গামছা ফেরি করে বেচে। শাহীন কনিষ্ঠ। সে চায়ের দোকানটিতে শ্রম দেয় বাবার সাথে। দোকানটি খুলনা মেডিকেল কলেজের সামনে। বেশ খোলামেলা টি স্টল। শফিকুল ইসলাম ও শাহীনের সুমিষ্ট বিনয়ী ব্যবহারে সবাই বশ। শাহীন এ দোকানে আছে শৈশব থেকে। শফিকুল ইসলাম তার এই সন্তানটিকে পড়াশুনো করানোর যথাসাধ্য চেষ্টা করেছেন। চায়ের দোকানের নিয়মিত খরিদ্দাররা ভালবাসে শাহীনকে। সকলের সহায়তায় সে পড়াশোনা চালিয়ে যাচ্ছে। সাথে সাথে তার গরীব পিতার পরিশ্রমের ভার লাঘব করছে। শাহীন এসএসসি পাশ করে অপেক্ষায় […]

২ ছাত্র নিহতের প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ জাবি শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ, শ্লোগান

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ শিক্ষার্থীর সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হওয়ার প্রতিবাদে ক্যাম্পাসে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। একই সাথে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ফুলেফেঁপে আছে। এখনো ঘাতক বাস ও চালককে চিহ্ণিত করতে না পারায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীরা। আর শিক্ষার্থীরা ৭ দিনের মধ্যে ৫ দফা দাবি মানার সময় বেঁধে দিয়েছে। এ সময়ের মধ্যে যদি দাবি না মানা হয় তবে কঠোর আন্দোলন করা হবে বলে নিহত শিক্ষার্থীদের সতীর্থরা জানিয়েছে। এর আগে শুক্রবার ভোরে বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের কাছে অজ্ঞাত বাসের ধাক্কায় ছিটকে পড়ে নিহত হন নাজমুল হাসান রানা। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের ৪৩ তম আবর্তনের শিক্ষার্থী। গুরুতর আহত অবস্থায় অপর শিক্ষার্থী আরাফাতকে সাভারের এনাম মেডিকেল হাসাপাতালে নিয়ে আইসিইউতে রাখা হয়। পরে সেখানেও তার মৃত্যু হয়। তারা দুইজনেই বিশ্ববিদ্যালয়ের আল-বেরুনী হলের আবাসিক শিক্ষার্থী এবং দুই জনেই […]

জাবির হল বন্ধে ১৪টি বিভাগের পরীক্ষা স্থগিত সেশনজট বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কা

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) বেশিরভাগ অনুষদের বিভাগগুলোতে লেগে আছে এক থেকে ৬ মাসের সেশন জট। তারমধ্যে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্বদ্যিালয় ও হল বন্ধ ঘোষণা করায় বিভিন্ন অনুষদের ১৪টি বিভাগের ১৯টি ব্যাচের ফাইনাল পরীক্ষা স্থগিত করতে হয়েছে। এতে চলমান সেশনজটের আরো কয়েকগুণ বৃদ্ধি পাবে বলে আশঙ্কা করছেন সাধারণ শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। হল বন্ধ ঘোষণা করায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছে শিক্ষার্থীরা। তারা অবিলম্বে হল খুলে দেওয়ার জোর দাবি জানিয়েছেন। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান এ অস্থিতিশীল পরিস্থিতিতে ঠিক কবে থেকে আবার স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হবে তা নির্দিষ্ট করে বলতে পারছে না বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এ কারণে শিক্ষাজীবন নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রায় ১৫ হাজার শিক্ষার্থী। কবে তারা শিক্ষাজীবন শেষ করতে পারবে তা নিয়ে অনিশ্চয়তায় ভুগছে। এতে আর্থিক ক্ষতির পাশাপাশি কর্মক্ষেত্রে প্রবেশে পিছিয়ে পড়ার শঙ্কা প্রকাশ করছে তারা। এর […]

লক্কড়ঝক্কড় বাসে ঝুঁকি নিয়ে চলছে জাবি শিক্ষার্থীরা

‘গাড়ি চলে না চলেনা চলেনারে গাড়ি চলে না’ আব্দুল করিমের এ গান যেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) পরিবহনের প্রতিধ্বনি। কারন লক্কড়ঝক্কড় বাসেই চলছে এ বিদ্যাপিঠের পরিবহন সেবা। যার ফলে রাস্তায় চলার সময় যখন তখন তা বিকল হয়ে থেমে যায় মাঝ পথে। এতে প্রতিনিয়ত চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার পর থেকে শিক্ষক-শিক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়লেও সে অনুপাতে বাড়ে নি পরিবহন। পাশাপশি, পরিবহন মেরামতের নামে অর্থ লুটপাট করে নিম্নমানের যন্ত্রপাতি কিনে বাড়তি দামে বিল-ভাউচার তৈরি করায় কয়েকদিন পর আবার নষ্ট হয়ে যাচ্ছে যানবাহন গুলো। এর জন্য কর্তৃপক্ষের উদাসীনতাকেই দায়ি করছে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। একমাত্র আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয়টিতে আবাসন সংকট প্রকট আকার ধারণ করায় ঢাকাসহ এর আশপাশ এলাকায় বসবাস করছে শিক্ষার্থীরা। তাই অনেকটা বাধ্য হয়েই এসব লক্কড়ঝক্কড় বাসে ঝুঁকি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে আসা-যাওয়া করছেন তারা। এতে শিক্ষার্থীদের […]

মা মিটিং: স্কুল ও বাড়ির সাথে সমন্বয়ের প্রচেষ্টা

আমি কাজ করি বাংলাদেশের একটা প্রত্যন্ত গ্রামের একটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। এখানে মানুষের জীবনের মূল যে চাহিদাগুলো, তার মধ্যে অন্ন–বস্ত্রের সংস্থান করতেই তাদের অধিকাংশের প্রাণপাত হচ্ছে। তাই এই সব পরিবারের শিশুশিক্ষা একটা জটিল বিষয়। শিশুকে স্কুলে দিতে হলে পরিবার থেকে তার একটা পূর্বপ্রস্তুতি প্রয়োজন থাকে। কিন্তু এখানে ঘটে ঠিক তার উলটো বিষয়। শিশু স্কুলে এসেই যাবতীয় জীবনাচরণ শেখে। সাথে শেখে লেখাপড়া। কিন্তু স্কুল আর বাড়ির সাথে সাধারণত কোন সমন্বয় থাকে না। বাবা–মায়েরা জানেনও না স্কুলে আসলে কী হয়, কী শেখানো হয়। একটাই কথা, স্কুল মানেই লেখাপড়া করা আর সেটা করাবে ঐ স্কুলের শিক্ষকেই। এখানে তাদের কোন ভূমিকা আছে সে সম্পর্কে তাদের কোনো ধারণাই নেই। ফলে যা হয়, অধিকাংশ শিশুকেই একা শিক্ষকের পক্ষে প্রান্তিক যোগ্যতাসমূহ অর্জন করানো সম্ভব হয় না। কারণ […]

শিক্ষা ক্ষেত্রে কোচিং সেন্টার ও বর্তমান অবস্থা

আমাদের দেশে ঠিক কবে, কখন, কীভাবে কোচিং সেন্টারগুলোর জন্ম হল তা নিশ্চিত করে বলা যাবে না। তবে বর্তমানে যে আমরা একটি কোচিং রাজ্যে বসবাস করছি তা বলে দিতে হয় না। অলিতে গলিতে নানান ধরণের কোচিং সেন্টারের উপস্থিতিই তার জানান দেয়। নিয়ন্ত্রনহীনভাবে গড়ে ওঠা এই বিপুল সংখ্যক কোচিং সেন্টার ও প্রাইভেট পড়ানোর স্থানগুলো আমাদের ছাত্রছাত্রীদের যে জিম্মি করে ফেলছে তা সুস্পষ্ট। রাজধানীতে ব্যাঙের ছাতার মতো গড়ে উঠেছে বিভিন্ন কোচিং সেন্টার। এসব কোচিং সেন্টারে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা আদায় করা হলেও মানসম্মত শিক্ষা প্রদান নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছে।   কোচিং সেন্টার শব্দের অর্থ ‘শিক্ষণ ও অনুশীলন কেন্দ্র’। যেখানে কোন কিছু নিয়মিত শেখা ও অনুশীলনের সুযোগ আছে সেটিই কোচিং সেন্টার। সেই হিসেবে বিদ্যালয়ও এক ধরণের কোচিং। কিন্তু কোচিং বলতে আমরা এখন […]