বিভাগ: খাদ্য ও কৃষি

সোনালী আঁশের স্বপ্ন ভেঙে হতাশায় কৃষক

সিরাজগঞ্জের গ্রামাঞ্চল এখন পাট কাটা, জাগ দেওয়া এবং পাট শুকানো নিয়ে সোনালী স্বপ্ন দেখছে। জেলার হাট–বাজারে নতুন পাট উঠতে শুরু করেছে। তবে শুরুতেই দাম নিয়ে চাষীদের রয়েছে হতাশা। বিভিন্ন হাট–বাজারে দেখা যায়, প্রতি মণ পাট বিক্রি হচ্ছে ১৫’শ থেকে ১৭’শ টাকায়। এবার মোটামুটি অনুকূল আবহাওয়া থাকায় পাটের বাম্পার ফলন হয়েছে। কিন্তু শেষের দিকে বন্যার পানিতে কিছুটা ক্ষতি হলেও, আবার উপকারও হয়েছে। পাট জাগ দিতে হাতের কাছেই পানি আর পানি। চাষীরা জানান, জমিতে পানি থাকায় পাটগাছ কাটা শ্রমিকদের অনেক বেশি মজুরি দিতে হচ্ছে। বেলকুচি চরের কৃষক আব্দুল মান্নান বলেন, এই মৌসুমে আমি ৪ বিঘা জমিতে পাট লাগিয়েছি। ফলনও ভালো হয়েছে। আমি এ পর্যন্ত হাটে দুইবার পাট বিক্রি করেছি। পাটের দাম কম হওয়ায় বিপাকে পড়েছি। কামারখন্দ ইউনিয়নের দমদমা গ্রামের কৃষক মজিদ আলী […]

ভাসমান কৃষিতে অপার সম্ভাবনা

নদীমাতৃক দেশ বাংলাদেশ। আমাদের রয়েছে ৪৫ লাখ হেক্টরের বেশি জলসীমা। গোপালগঞ্জ, ঝালকাঠি, বরিশাল, পিরোজপুর, সাতক্ষীরা, চাঁদপুর, কুমিল্লা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নেত্রকোনা, কিশোরগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ জেলাসহ আরও অনেক জেলা বর্ষা মৌসুমে বিরাট অংশ জলাবদ্ধ থাকে। সেখানে বছরে প্রায় ৬ মাস পানিতে নিমজ্জিত থাকে। এ সময়ে সেখানে কোনো কৃষি কাজ থাকে না, ফসল হয় না, মানুষ বেকার জীবন-যাপন করে। ওইসব এলাকায় ওই সময়ে কচুরিপানা ও অন্যান্য জলজ আগাছায় ঢাকা থাকে। দক্ষিণাঞ্চলের কৃষকরা নিজেদের প্রয়োজনে নিজেরাই উদ্ভাবন করলেন ভাসমান কৃষি কার্যক্রম। এসব জেলার জলমগ্ন এলাকাগুলো কচুরিপানা ও অন্যান্য জলজ আগাছায় আচ্ছন্ন রয়েছে। বিশেষ করে বিভিন্ন বিল, হাওর, নালা, খাল ও মজা পুকুর। সেখানে এখন বিজ্ঞানসম্মত উপায়ে স্তূপ করে প্রয়োজনীয় মাপের ভেলার মতো বেড তৈরি করে ভাসমান পদ্ধতিতে বছরব্যাপী বিভিন্ন ধরনের শাকসবজি ও মসলা উৎপাদন করছেন […]

জল জমিনের বারুগ্রাম ও ইসমাইল মোল্লার ব্যাথার বীণা

রাজবাড়ী থেকে মোটর সাইকেলে বহরপুর। বালিয়াকান্দি উপজেলার ইউনিয়ন এই বহরপুর।পৌছাতে সময় লাগে ৪০ মিনিট । বহরপুর বাজারে একটু থেমে বারুগ্রামের পথে যাত্রা শুরু। চলতে চলতে ঘনবসতি ক্রমে কমতে শুরু করে। এক সময় হারিয়ে যায় সব। বাড়িঘর, মানুষ। থাকে কেবল প্রকৃতি, নিরবিচ্ছিন্ন সবুজ, নীরবতা আর বাতাসের শনশন শব্দ। রাস্তা ভাল। গাড়িও ছুটছে দ্রুত। চারিদিকে শুধু মাঠ আর ফসলের ক্ষেত। মাঝ খান দিয়ে রাস্তা। আর কতদূর বারুগ্রাম?             দৃষ্টিসীমায় চলে আসে বর্ষা পানিতে যৌবন ফিরে পাওয়া বিল। জেলেদের নৌকা, ভেসাল আর মাছ ধরার বিভিন্ন উপকরণ নিয়ে ব্যাস্ত  কিছু মানুষ। হোন্ডা থামে। প্রশ্ন ছোটে কিছু মানেুষের কাছে, বরুগ্রাম কত দূর? জবাব, এইতো সামনে। আবার চলার শুরু। এবার  ইট বিছানো রাস্তা। কয়েক কিলোমিটার চলার পর দেখা মেলে বরুগ্রামের। বর্ষার […]

কেঁচো সার এবং প্রাণ ও প্রকৃতি ভাবনা

মেহেরপুর সদর উপজেলার আমঝুপি গ্রাম। সেখানে আছেন কেঁচো সার উৎপাদনের একজন বড় খামারী, নাম, কুতুব আলী। তাই কজন বেকার যুবক নিয়ে গেলাম দেখতে, যাতে তাদের এই কাজে উদ্বুদ্ধ করা যাত। জানা গেল কুতুব আলী যখন ২০০৮ সালে যখন কৃষি বিষয়ে পড়াশোনা শেষ করেন তখন প্রাণ ও প্রকৃতির প্রতি দায় থেকে তিনি এই কেঁচো সার উৎপাদনের চিন্তা করেন, যখন এখানে সেটা প্রায় অকল্পনীয় বিষয় ছিল। তখন তিনি পরিবার ও বন্ধুবান্ধব কারো কাছেই কোন আর্থিক এবং মানসিক সাহায্য পান নি। কোথাও থেকে কোন অর্থ সহযোগিতা না পেয়ে নিজের কিছু জমানো টাকা এবং প্রাণ প্রিয় মোটর বাইকটি বিক্রি করে দিয়ে তিনি এই কেঁচো সারের খামার দিলেন। তার ভাষ্যমতে ৭৫ হাজার টাকা খরচ করে ছয় মাস পরে তিনি পেলেন ২ হাজার টাকা, অর্থাৎ, ২ […]

আমি বাসায় বসে অযথা লস করবো না

লিখেছেনঃ মোসা: মনজিলা খাতুন , পাটপণ্য প্রস্তুতকারী, ৩নং চন্দনপাট ইউনিয়ন, হরিপুর মাস্টারপাড়া, রংপুর। আমি আগে পাটের কাজ জানতাম না। ২০১৪ সালে সুইচ এশিয়া জুট ভ্যালুচেইন প্রজেক্ট আসে। সেখান থেকে পাট পণ্য তৈরি করা শিখি। ৬ মাস প্রশিক্ষণ নেই। তখনই বাঁধা সৃষ্টি হয়। আর আমার শ্বশুর আমাকে বাঁধা দেন। আমাকে বলেন, কোথায় যাস? সেখানে গিয়ে কী করবি? কিন্তু আমি বাসায় বসে অযথা লস করবো না। আমি কাজকে ভালোবাসি , সেখান থেকে কিছু উপার্জন করব। আমি টেবিল মেট, শিকা, মোবাইল ব্যাগ, শপিং ব্যাগ তৈরির করার ট্রেনিং করলাম। এখন আমি ভালোভাবে পণ্য তৈরি করে বিভিন্ন মার্কেটে বিক্রি করছি। কন্তিু আমার সমস্যা হচ্ছে বাড়ি বাড়ি গিয়ে নারীদরে পক্ষে পণ্য বিক্রি করা সম্ভব না। এজন্য নারীদের জন্য শোরুম দরকার। কেননা আমরা নারীরা পণ্য তৈরি করে ঘরে বসে […]