বিভাগ: নারী ও শিশু

জুলেখার যত ভয়

নীলফামারীর ডিমলার রায়পুর গ্রামের জুলেখা ( ছদ্মনাম )আব্দুল গফুরের( ছদ্মনাম) মেয়ে। জুলেখা বলতে আব্দুল গফুর অজ্ঞান। জুলেখা যা বলে যা চায় আব্দুল গফুর তাই করে। টাকা পয়সা না থাকলে, ধার কর্জ করে হলেও, পরী’র সব চাহিদা সে পূরণ করে। জুলেখা মাত্র ক্লাস এইটে পড়ে । ২০১৭ সালে ফাইনাল পরীক্ষা শেষ হওয়ার তিনদিন আগে জুলেখা বাড়ি ফিরে বলে সে আর পরীক্ষা দিবে না । গফুর সাহেব অবাক হন । মেয়ে তার মেধাবী । কেন পরীক্ষা দেবে না বললে কিছুই বলে ন । রাতে জুলেখার ভীষণ জ্বর আছে । গফুর সাহেবের স্ত্রী মাথায় জলপট্রি দেন । অষুধ দেন । পরদিন ভোরে জ্বর কমলে গফুর সাহেব বলেন , “ মা জুলেখা পরীক্ষাটা দিয়ে দে । অার মাত্র তিনদিন । নাহলে তোর একবছর লস […]

মেয়েটি টিউশনিতে যাওয়ার পথে যেভাবে রেপ হতে যাচ্ছিল দৈনন্দিন জীবনে মেয়েরা কী নিরাপদ ?

২৩ আগষ্ট সন্ধ্যায় আমি একটুর জন্য গ্যাংরেপড হওয়া থেকে বেঁচে গেছি।এর জন্য কৃতজ্ঞতা জানাই বনানী থানার পুলিশদের।উনারা এসে আমাকে না বাঁচালে আমাকে কমপক্ষে ৫০ জন মিলে রেপ করতো।যদিও তারা রেপ এর কাছাকাছি মজাই পেয়েছে। ঘটনাটা একটু বিস্তারিত বলি।আমি প্রতিদিন মিরপুর ১০ থেকে বনানীতে টিউশনি করতে যাই।ট্রাস্ট এর আর্মি ওয়েলফেয়ার বাসে করে কাকলীতে নামি, কিন্তু বেশির ভাগ দিনই কাকলী পর্যন্ত বাস যায় না, তার আগে সৈনিকক্লাব এ নামিয়ে দেয়।কাকলীতে গেলে নাকি বাসটা কে মহাখালী ফ্লাইওভার হয়ে ঘুরে আসতে আসতে অনেক সময় লেগে যায়।যাই হোক, গতকাল সন্ধ্যাতে ও আমাকে সৈনিক ক্লাব এ নামায়ে দিলো।আমি রাগে গজগজ করতে করতে রাস্তা পার হচ্ছিলাম।তাখনই  একটা লোক এসে পিছন থেকে আমার পাছায় খুব জোড়ে থাপ্পর দিয়ে জোড়ে হাঁটা শুরু করলো।আমি সাথে সাথে  লোকটার পিছনে দৌড়ানো আরম্ভ […]

অসহায় শিশু যখন ব্যবসার মুলধন

কথা বলতে পারেনা। পা দুটো অচল। হাতেও কোন কাজ করতে পারেনা। তার পরিচয় কি? তাও সে জানেনা। শুধু হাসতে পারে। রাজধানীর বঙ্গবাজার রেলওয়ে জামে মসজিদের সামনে বসে থাকা ছবির ছোট্ট এ শিশুটির এ অবস্থা। রোববার মসজিদটির সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় তাকে দেখে খুব মায়া লাগলো। পা গুলো কেমন জানি চিকন হয়ে গেছে। পায়ের পাতার অংশ উল্টে আছে বিপরীত দিকে। তার সামনে রাখা একটা বাটি। সেখানে মানুষ দান করছে। আমিও সে বাটিতে কিছু টাকা দিলাম। তারপর কথা বলতে চাইলাম তার সাথে। জিজ্ঞাস করলাম, কি নাম তোমার? কয়েকবার জিজ্ঞাস করার পর মেয়েটি এদিক সেদিক চেয়ে শুধুই হাসে, কিছুই বলেনা। তারপর পাশে বসা এক টুপি বিক্রেতা বললো মামা ও কথা বলতে পারেনা। জিজ্ঞাস করলাম কেন? জন্ম থেকে এমন। এমনকি দাড়াতেও পারে না। আগে […]

আলোর ঝর্ণাধারায় শারমিন

শারমিন আক্তার পরিবারের বড় সন্তান। পিতা: মনির হোসেন শেখ, গ্রাম ও পোস্ট: বালিয়া, উপজেলা সদর, চাঁদপুর। বাবা-মা ও পাঁচ ভাই-বোন নিয়ে তাদের অভাবের সংসার। তার বাবা মোঃ মনির হোসেন শেখ একজন দরিদ্র কৃষক। সাতজনের সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হয় তাকে। এমন অবস্থায় এইচএসসি পরীক্ষার পর অভাবের তাড়নায় বন্ধ হয়ে যায় শারমিনের লেখাপড়া। আর পরিবারের জন্য সে বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছিল। পরিবারে কোন আর্থিক সহায়তাও করতে পারছিল না শারমিন। দুর্বিষহ জীবন কাটাতে হয়েছে তার। এছাড়াও মাথার উপর ছিল বিয়ের খড়গ। কি করবে বুঝতে পারছিল না শারমিন। কিন্তু এই অন্ধকার থেকে তাকে আলোর পথে নিয়ে আসে এ্যাপ্রেনটিচশীপ প্রোগ্রাম। ২০১৬ সালের নভেম্বর মাসে শারমিন জানতে পারে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রোগ্রামের উদ্যোগে চাঁদপুর সদর উপজেলার বালিয়া প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে সেলাইবিষয়ক এ্যাপ্রেনটিসশীপ প্রোগ্রামশুরু হচ্ছে। হাতে-কলমে এ প্রশিক্ষণ […]

ঘুরে দাড়িয়েছেন জাহানারা

তার নাম  জাহানারা। ময়মনসিংহ জেলায় বাড়ি তার।প্রায় ত্রিশ বছর আগে অনেক স্বপ্ন নিয়ে স্বপরিবারে ঢাকায় পাড়ি জমান তিনি। স্বামী ও দুই মেয়েকে নিয়ে ছোট্ট পরিবার তার। সাভারের ইসলামনগরে গড়ে তোলেন তার সুখের নিবাস। তার স্বামী রিকশা ভাড়া নিয়ে চালানো শুরু করেন। আর জাহানারা তার মেয়েদের দেখাশোনা আর ঘর সামলানোয় ব্যস্ত থাকতেন। স্বল্প আয়ে ভালোই চলছিল তাদের সংসার। কিন্তু হঠাৎ তাদের এই সুখে ছেদ ঘটে। এক দূর্ঘটনায় তার স্বামী পায়ে মারাত্মক আঘাত পান। সারা জীবনের জন্য রিকশা চালানোর ক্ষমতা হারায় তিনি। ফলে ঘরকন্না ছেড়ে সংসারের হাল ধরতে হয় জাহানারাকে। তিনি জানতেন  না কিভাবে তার সংসারের ব্যয় বহন হবে। অন্যদিকে অসুস্থ স্বামীর চিকিৎসা। এই কঠিন অবস্থায় ভেঙে পড়েননি জাহানারা। সামান্য কিছু পুঁজি দিয়ে ব্যবসা শুরু করেন তিনি। ফলের ব্যবসা। পথের ধারে একটা […]

হার না মানা রাশেদা

ভয়াবহ নির্যাতন করে পঙ্গু বানিয়ে দিয়েছে স্বামী। তালাকপ্রাপ্ত হয়ে বাপের বাড়ি ফিরে আসার পর আলাদা করা হয়েছে সন্তানদের। ক্রাচে ভর করে বয়ে বেড়াচ্ছেন ক্ষত–বিক্ষত পঙ্গুত্ব জীবন। তবু জীবনযুদ্ধে হার মানতে রাজি না শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার তাতিহাটি ইউনিয়নের উত্তর ষাইটকাকড়া গ্রামের মৃত সনু শেখের মেয়ে রাশেদা বেগম। নির্যাতনের ক্ষত মুছে ফেলে জীবনযুদ্ধে ঘুরে দাঁড়াতে চান তিনি।  রাশেদা জানান, বাবা মারা গেছেন অনেক আগেই। মা অন্যর বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করে সংসার চালাতেন। পার্শ্ববর্তী রহমতপুর গ্রামের তুফানো শেখের ছেলে বাবুল মিয়ার সঙ্গে তার বিয়ে হয়। দাম্পত্য জীবনে দুই ছেলে ও এক মেয়ের মা হন তিনি। স্বামী ছিল জুয়াড়ি। বিয়ের সময় যৌতুক হিসেবে ৬০ হাজার টাকা ছাড়াও রাশেদার পরিবার দিয়েছিল নানা আসবারপত্র। এরপরও টাকার জন্য প্রায়ই নির্যাতন করা হতো তাকে।  রাশেদা জানান, প্রায় একবছর […]

বাইক রাইডার ‘মাফিয়া গার্ল’ জান্নাতুল!

জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল। ২০ বছরে পা দিয়েছেন। সাহসী। প্রতিবাদী। এসব কারণে বন্ধুরা তাকে ‘মাফিয়া গার্ল’ বলে ডাকেন। এমন ডাক উপভোগও করেন। এটা তার সাহসী ও প্রতিবাদী চরিত্রের স্বীকৃতি মনে করেন এই তরুণী। তবে এসব কিছু ছাড়িয়ে তিনি বাংলাদেশের প্রথম হাইস্পিড লেডি বাইক রাইডার। তার লক্ষ্য হাইস্পিড লেডি বাইকার হিসেবে বিশ্ব দরবারে নিজেকে তুলে ধরা। বন্দরনগরী চট্টগ্রামের মেয়ে এভ্রিল মাত্র ১৪ বছর বয়সেই বাইক চালানো শিখেছেন। এরপর আস্তে আস্তে মোটরবাইক চালানো তার শখে পরিণত হয়। এ যান ঘিরেই চলতে থাকে তার নানা কসরত। মোটরসাইকেল নিয়ে বিভিন্ন নৈপুণ্য দেখাতে পারদর্শী হয়ে ওঠেন। ৫ ফুট ৮ ইঞ্চি উচ্চতাসম্পন্ন এভ্রিলের বাইক নৈপুণ্য প্রদর্শনী, বাইক চালানোর ছবি ও ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে। সেলিব্রেটি বনে যান তিনি। ফেসবুক ফলোয়ারের সংখ্যা ছাড়ায় ৯০ হাজার। বর্তমানে […]

আদালতে চাকমা নারী

সুপ্রীমকোর্ট বারে প্রথমবারের মতো চাকমা সম্প্রদায়ের নারী আইনজীবী হিসেবে যাত্রা শুরু করেছেন সমারি চাকমা। গত চার বছর ধরে বিচারিক আদালতে কাজ করছেন সমারি চাকমা। কিন্তু ২০১৭ সালে এসে সুপ্রীমকোর্ট বার এর পরীক্ষায় উর্ত্তীর্ণ হওয়ায় তিনিই চাকমা সম্প্রদায়ের প্রথম নারী আইনজীবী হিসেবে পেশাগত জায়গায় এই স্থান অর্জন করলেন। হিল উইমেনস ফেডারেশনের একজন সক্রিয় নেত্রী ছিলেন সমারি চাকমা। পরবর্তীতে তিনি নানা সামাজিক কাজের সঙ্গে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন। রূপক চাকমা ট্রাস্টের মাধ্যমে বন্ধুদের সঙ্গে পাহাড়ের শিক্ষার্থীদের শিক্ষাবৃত্তির মাধ্যমে লেখাপড়া এগিয়ে নেওয়ার কাজও করেন সমারি। এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে সহযোদ্ধা কল্পনা চাকমার অপহরণের বিরুদ্ধে লড়াই অব্যাহত রেখেছেন সমারি চাকমা। পাহাড়ের নারীদের নির্যাতন ও নিপীড়নের ‍বিরুদ্ধে সমারি চাকমা সরব রয়েছেন সবসময়। সমারি চাকমা বলেন, “নারী নির্যাতনের ঘটনা সমতলে এক রকম, পাহাড়ে অন্য রকম। পাহাড়ের এই নির্যাতিত […]

আখি : শখ থেকে স্বাবলম্বী

১৯৯৯ সালের কথা। মাত্র আড়াই হাজার টাকা পুঁজি নিয়ে শখের বসে ঘরে বসেই নিজ হাতে নানারকম নকশার সালোয়ার–কামিজ সেলাই করতে লাগলেন ফারজানা আঁখি। বাজার থেকে শাড়ি কিনে তাতে হাতের কাজ করতেন। হাতের কাজে পোশাকে নতুন বৈচিত্র্য যোগ হতো, যা ক্রেতাদের প্রশংসা কুড়াতে শুরু করলো। একবার যারা তার পোশাক কিনেছেন, তারা আরো আগ্রহী হয়েছেন। ক্রেতাদের প্রশংসা তার মনোবল আরো বাড়িয়ে দেয়। সময়ের সাথে বাড়তে থাকে পোশাকের অর্ডার। কিন্তু পুঁজি না থাকায় আটকে যান। কিন্তু থেমে থাকেননি তিনি। বন্ধুদের সহযোগিতায় একটু একটু করে এগোতে থাকেন। অল্প অল্প করে বাড়তে থাকে পরিচিতি। এরই মধ্যে বাটিক ও নকশার কাজ করা সালোয়ার–কামিজ, থ্রি পিস, শাড়ি, বিছানার চাদর, কুশন কভার, শাল চাদরের ব্যাপক চাহিদা বাড়তে লাগল। তখন একটি দোকানের চিন্তা মাথায় আসে। কিন্তু পুঁজির সংকটে আটকে […]

শিশু নয় যেন তরুণী

ভারতের সুপ্রিম কোর্ট মুম্বাই শহরের ১৩ বছর বয়সী এক ধর্ষিতা শিশুকে গর্ভপাত করানোর অনুমতি দিয়েছে। ৮ সেপ্টেম্বর ওই শিশুটির গর্ভপাত করানো হবে। ৩২ সপ্তাহের গর্ভবতী ওই শিশুটির গর্ভপাত করানোর জন্য আদালতের অনুমতির প্রয়োজন ছিল – কারণ ভারতের আইনে ২০ সপ্তাহের পর গর্ভপাতের অনুমতি শুধু তখনই দেয় যখন মায়ের জীবনের আশঙ্কা থাকে। শিশুটি যে গর্ভবতী হয়ে পড়েছে, সেটা জানাজানি হয় মোটা হয়ে যাওয়ার চিকিৎসা করাতে তার বাবা-মা তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যাওয়ার পর। শিশুটি অভিযোগ করেছে তার বাবার এক সহকর্মীই তাকে ধর্ষণ করেছে। ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শিশুটিকে গর্ভপাত করতে দেওয়ার অনুমতি দিয়েছে শীর্ষ আদালতের তিন সদস্যের একটি বেঞ্চ, যার নেতৃত্বে ছিলেন দেশের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র। মুম্বাইয়ের জে জে হসপিটালের বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের প্যানেলের তৈরি করা মেডিক্যাল রিপোর্ট খতিয়ে দেখেই […]